মেঘনায় বরযাত্রীবাহী ট্রলারডুবি, কনেসহ ছয়জনের লাশ উদ্ধার

নোয়াখালীর হাতিয়ায় বরযাত্রীবাহী একটি ট্রলার মেঘনা নদীতে ডুবে গেছে। আজ মঙ্গলবার বেলা দেড়টার দিকে চেয়ারম্যানঘাটের দক্ষিণ–পশ্চিমে এই ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মারা যাওয়া কনে, তিন শিশুসহ ছয়জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে হাতিয়ার চানন্দি ইউনিয়নের কেরিংচর থেকে বরযাত্রীবাহী একটি ট্রলার মেঘনার ঢালচরের দিকে যাচ্ছিল। চেয়ারম্যানঘাটের দক্ষিণ–পশ্চিমে এবং টাঙিরঘাটের দক্ষিণে আসার পথে স্রোতের তোড়ে এটি উল্টে নদীতে ডুবে যায়। এরপর ট্রলারের প্রায় ২৫-৩০ জন যাত্রী সাঁতরে ও নদীতে থাকা মাছ ধরার জেলেদের সহায়তায় তীরে ওঠে। পরে স্থানীয় ব্যক্তিদের সহায়তায় নদী থেকে ডুবে যাওয়া ট্রলারটি উদ্ধার করা হয়। বিকেল সাড়ে পাঁচটায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ট্রলারের ভেতরে কনেসহ পাঁচজনের লাশ পাওয়া যায়।

ঘটনাস্থলে থাকা হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরান হোসেন কনেসহ বরযাত্রীবাহী ট্রলারডুবির ঘটনা নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, দুপুরের দিকে ঘটনাটি ঘটে। ট্রলারটিতে অর্ধশতাধিক যাত্রী ছিল। বিকেল পর্যন্ত ডুবে যাওয়া ট্রলার থেকে কনেসহ ছয়জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

ইউএনও আরও বলেন, ডুবে যাওয়া ট্রলার থেকে তাছলিমা আক্তার (২১), আছমা আক্তার (১৯), আফরিমা আক্তার ওরফে লামিয়া (২), লিলি আক্তার (৮), হোসনে আরা বেগম (৫) এবং চেয়ারম্যানঘাটের কাছ থেকে এক অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, ডুবে যাওয়া ট্রলারে ঠিক কতজন যাত্রী ছিল, এখনো তা নিশ্চিত নয়। তবে নিখোঁজ যাত্রীদের উদ্ধারে নৌ পুলিশের পাশাপাশি থানা-পুলিশও কাজ করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *